আমার এই ডোমেইনের দাম কত হতে পারে?

আমার এই ডোমেইনের দাম কত হতে পারে? ডোমেইন এর ভ্যালু যাছাই করার পদ্ধতি

নতুন ডোমেইনিয়ার দের জন্য ডোমেইন এর ভ্যালু নির্ধারন বা ডোমেইনের দাম কত হতে পারে এটা বের করা একটি সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। হয়ত কেউ ১০০ ডলার দাম হবে না এমন ডোমেইন নিয়ে কয়েকে হাজার ডলার বিক্রির আশা নিয়ে বসে থাকে আবার এমনও হয় অনেক ভ্যালুয়েবল ডোমেইন দাম নির্ধারন না করতে পারার কারনে নাম মাত্র মূল্যে বিক্রয় করে দেয়। এই নিবন্ধে,আমরা ডোমেইন দাম নির্ধারনের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করব। আমরা এমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় অনুসন্ধান করব যা একটি ডোমেইনের মূল্য নির্ধারণ করে এবং আপনার নিজের ডোমেইনের দাম নির্ধারণ করতে আপনি কী করতে পারেন তা আপনাকে দেখাব। চলুন শুরু করি!

প্রথমেই আমরা ডোমেইন এর দাম নির্ধারনের সাথে বিবেচিত বৈশিষ্ট্যগুলি দেখি-

এক্সটেনশন- ডোমেইন ইনভেস্টর অথবা ইউজার উভয়ের কাছেই সবার্ধিক জনপ্রিয় এক্সটেনশন হচ্ছে ডটকম (.com)। তাই বেশির ভাগ ক্রেতাই এর দিকে ঝুকবেন। তারপর যথাক্রমে ডট নেট, ডট অর্ঘ, ডট কো কিংবা অনেক সময় নতুন কোন ট্রেন্ডি এক্সটেনশনও ভ্যালুয়েবল হতে পারে। তাই এক্সটেনশন আপনার ডোমেইন এর দামের ক্ষেত্রে অনেক বড় প্রভাবক।

জনপ্রিয়তা এবং ট্র্যাফিক– যদি ডোমেইনের নামটি বর্তমানে কোনও নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়, তবে সাইটটি যে পরিমাণ ট্র্যাফিক গ্রহণ করবে তা ডোমেইনের মূল্য নির্ধারণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হয়ে উঠতে পারে। এর কারণটি বেশ সোজা। যদি ডোমেইনটি কোনও বিদ্যমান শ্রোতার সাথে সংযুক্ত থাকে তবে ক্রেতা তাদের সাইটের জন্য এখনই সেই ট্র্যাফিকের সুযোগ নিতে পারে। যদি ডোমেইনটি কিছু সময়ের জন্য সক্রিয় থাকে তবে এটি নতুন মালিকের জন্য এটির অনুসন্ধান ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) কে সহায়তা করতে পারে, এটি এটিকে আরও আবেদনময়ী করে তুলতে পারে।

কিওয়ার্ড- আপনার ডোমেইন নামে সঠিক কিওয়ার্ড অন্তর্ভুক্ত থাকলে SEO এর জন্য এটি আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। উচ্চতর দৃশ্যমানতার গবেষণা অনুসারে, বেশিরভাগ ইন্ডাস্ট্রিতে, বেশিরভাগ সাইটগুলিতে তাদের ডোমেইনগুলিতে উচ্চমানের কীওয়ার্ড অন্তর্ভুক্ত থাকে। উদাহরণস্বরূপ, অনুসন্ধান ইঞ্জিনের ক্যোয়ারী “হোটেল” এর শীর্ষস্থানীয় ওয়েবসাইটটি হল www.hotels.com। যেমন, আপনার ডোমেনে যদি পছন্দসই কীওয়ার্ড থাকে তবে এটির মান বাড়িয়ে দিতে পারে।

ব্র্যান্ডবিলিটি- যদিও কোনও ডোমেনের ব্র্যান্ডবিলিটি নির্ধারণ করা খুব কঠিন হতে পারে,কিন্তু এটি নাম পছন্দ করার সময় সাইটের মালিকরা গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করে। বিশ্বের সর্বাধিক দেখা ওয়েবসাইটের বেশিরভাগই স্পষ্ট, স্মরণীয় এবং অনন্য। যেমন টুইটার ডটকম, ইউটিউব ডট কম এবং ফেসবুক ডটকম। যদি আপনার ডোমেইনটি একইভাবে আকর্ষণীয় এবং মনোযোগ আকর্ষণকারী হয় তবে এটি ক্রেতাদের বিশেষ নজরে পড়বে।

বানান- আপনার ডোমেইনটির সঠিক বানান  নিশ্চিত করে নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। কেউই ভ্যালুলেস অপেশাদার ডোমেইন এর ভ্যালু দিবে না। একই সময়ে, অপ্রত্যাশিত বানান ব্যবহার কখনও কখনও সুবিধা হতে পারে, কারণ এটি ডোমেনটিকে আরও ব্র্যান্ডেবল করে তুলতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, fiverr.com এবং tumblr.com প্রযুক্তিগতভাবে ভুল বানান নিয়েছে এবং স্মরণীয়, স্থায়ী ব্র্যান্ড তৈরি করতে এগুলি ব্যবহার করেছে।

ডোমেইন লেন্থ- ডোমেইন ইন্ডাস্ট্রির একটি সাধারন নিয়ম হল আপনার ডোমেইনটি যত ছোট, ব্র্যান্ডেবল এবং শ্রুতিমধুর হবে ততই লোকেরা এর বেশি ভ্যালু দিবে। আবার ছোট ডোমেইন কিন্তু পড়া যায় না এমন হলেও আপনি এর ভ্যালু পাবেন না। ছোট ডোমেইন সব সময়ই বিরল আর তাই ক্রেতারা এর মূল্য দিতে পিছপা হন না।

আপনি নিজের ডোমেইনের সম্ভাব্য মান নিয়ে গবেষণা করার সাথে সাথে এই পয়েন্টগুলি মনোযোগ দেওয়ার মতো। তবে মনে রাখবেন ডোমেইন এর দাম নাটকীয় ভাবে পরিবর্তন হতে পারে। সময়ের সাথে সাথে ডোমেইন এর দাম উঠানামা করে।

এবার আসা যাক কিভাবে আপনার ডোমেইন এর দাম নির্ধারন করবেন-

১। অনুরুপ ডোমেইন এর দাম নিয়ে গবেষনা করুন- এটি হতে পারে সবচেয়ে সহজ এবং কার্যকর উপায় আপনার ডোমেইন এর দাম নির্ধারনে।  আপনার জন্য এই বিষয়টি জানা গুরুত্বপূর্ণ যে এর আগে লোকেরা এই সম্পর্কিত ডোমেইন এর কেমন ভ্যালু দিয়েছে। উপরেই বলেছি যে ডোমেইন এর দাম নাটকীয়ভাবে পরিবর্তন হতে পারে, তাই আপনাকে অন্য কাছাকাছি ডোমেইন এর দাম দেখার সাথে সাথে ইন্ডাস্ট্রি সম্পর্কে সব সময় ওয়াকিবহাল থাকতে হবে।

বেশ কয়েকটি সাইট ডোমেইন বিক্রয় সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ করে, আপনি এখান থেকে দেখে নিতে পারেন এর আগে এ সম্পর্কিত ডোমেইন কত দামে বিক্রয় হয়েছে। এই রকম দুটি সাইট হল নেমবাও (namebio) আর অন্যটি হল ডিএন জার্নাল। ডিএন জার্নালে আপনে শেষ তিন সপ্তাহের বিক্রয় সম্পর্কে আইডিয়া নিতে পারবেন।

২। মূল্যনির্ধারণ টুলের ব্যবহার- আসলে কোন ডোমেইনের সঠিক দাম কেউ বলতে পারেনা। কোন ভ্যালু জেনারেটর টুল সঠিক না। ডোমেইনের দাম নির্ভর করে এর ইন্ড ইউজারদের উপর। তারপরও আপনি কোন টুল থেকে ধারনা নিতে চাইলে এস্টিবট টুল ব্যবহার করে আইডিয়া নিতে পারেন।

৩। মানুষ কেমন দাম দিতে চায় যাছাই করুন- আপনার ডোমেইনটি অন্য মানুষজন কেমন দাম দিতে চায় আপনি সেটি যাছাই করে আপনার ডোমেইন এর জন্য একটি দাম নির্ধারন করতে পারেন। সেটি হতে পারে আপনার পরিচিত ডোমেইনিয়ার দের সাথে শেয়ার করে কিংবা বিভিন্ন কমিউনিটিতে পোস্ট দিয়ে। যেমন নেমপ্রস কমিউনিটিতে এমন একটি অপশন আছে যেখানে আপনি পোস্ট করলে অন্য ডোমেইনিয়াররা সেখানে আপনাকে আইডিয়া দিতে পারে। কিন্তু সর্বোপরি আপনাকেই দাম নির্ধারন করতে হবে আপনি কততে বিক্রয় করবেন।

সর্বশেষ একটি বিষয় মাথায় রাখবেন আপনি একটি ডোমেইন কিনতে যত বেশি খরচ করবেন তত বেশি দাম পাবেন। আজ একটা ডোমেইন ১হাজার টাকায় হ্যান্ড রেজিস্ট্রেশন করে কালকে কয়েক লক্ষ টাকা আশা করা বোকামি। লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করে কয়েক লক্ষ কিংবা কোটি টাকা আশা করতে পারেন অন্যদিকে হাজার টাকা ইনভেস্ট করে রাতারাতি লাখ টাকার আশা বাদ দেওয়াটাই ভাল হবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!